গুগল সার্চে করোনাকে টপকে শীর্ষে মেসি

খেলা ডেস্ক

২৯-৮-২০২০

This image is not found

করোনাভাইরাস মহামারি নিয়ে চর্চা চলছে বছরের শুরু থেকেই। ইন্টারনেটে করোনা নিয়ে খোঁজখবর নেওয়ার প্রবণতা অনেক বেশি। গুগল সার্চ ইঞ্জিনে সার্চ ট্রেন্ডেও চলছে সংক্রামক এ ভাইরাসের আধিপত্য। এর মধ্যে শুধু একজনই পেরেছেন গুগলে সার্চ ট্রেন্ডে করোনাকে দমিয়ে রাখতে। লিওনেল মেসি!

খোলাসা করে বলা যাক। মঙ্গলবার রাতে বুরোফ্যাক্সের মাধ্যমে বার্সেলোনা ছাড়ার সিদ্ধান্ত ক্লাবকে জানান মেসি। এরপরই গুগলে হামলে পড়েন ফুটবলপ্রেমীরা। ‘মেসি ইজ লিভিং’, ‘মেসি নিউজ’, ‘মেসি বার্সা’, ‘সোপ অপেরা মেসি’, ‘হোয়াট হ্যাপেনড টু মেসি’—এসব লিখে গুগলে সার্চ দিয়েছেন তাঁরা। বলা ভালো এখনো দেওয়া হচ্ছে। বার্সা-মেসি সম্ভাব্য বিচ্ছেদের নতুন খবরাখবর জানতেই এভাবে হামলে পড়েছেন ফুটবলপ্রেমীরা।

স্পেনে মেসিকে নিয়ে গুগলে সার্চ দেওয়ার পরিমাণ সবচেয়ে বেশি। স্প্যানিশ সংবাদমাধ্যম ‘এএস’ জানিয়েছে কাল বিকেল (স্থানীয় সময়) পর্যন্ত মেসিকে নিয়ে গুগলে সার্চের হার ছাপিয়ে গেছে করোনা ভাইরাসকে। অর্থাৎ এ ভাইরাস নিয়ে সার্চ দেওয়ার হারকেও ছাপিয়ে গেছে মেসিকে নিয়ে গুগলে মানুষের আগ্রহ। গুগল ট্রেন্ডস টুল থেকে খবরটি জানিয়েছে সংবাদমাধ্যমটি।

বার্সা যেহেতু কাতালান ক্লাব তাই কাতালুনিয়া অঞ্চলে মেসিকে নিয়ে গুগলে সার্চের হার সবচেয়ে বেশি—যা করোনা নিয়ে সার্চ দেওয়ার দ্বিগুণ (৭০%-৩০%)। ভ্যালেন্সিয়া ও গ্যালিসিয়া অঞ্চলে এই হার তুলনামূলক কম। ৫০-৫০ এবং ৪৯-৫১ শতাংশ প্রায়। মাদ্রিদে এই হার বেশি হওয়ার কথা ছিল, যেহেতু বার্সেলোনা রিয়াল মাদ্রিদের চিরপ্রতিদ্বন্দ্বী ক্লাব। আর তাই চিরপ্রতিদ্বন্দ্বী দলের সেরা খেলোয়াড় ক্লাব ছাড়তে চান, এ খবর প্রকাশ হওয়ার পর মাদ্রিদে আগ্রহটা তুঙ্গে থাকার প্রত্যাশাই স্বাভাবিক। ভুল। মেসির তুলনায় করোনা নিয়ে বেশি সার্চ (৫৩%) দিয়েছেন মাদ্রিদের নাগরিকেরা।

লিওনেল মেসি বার্সা ছাড়ার সিদ্ধান্ত নেওয়ার পর তাঁকে নিয়ে গুগলে সার্চ দেওয়ায় আগ্রহ বেড়েছে হু হু করে। 
লিওনেল মেসি বার্সা ছাড়ার সিদ্ধান্ত নেওয়ার পর তাঁকে নিয়ে গুগলে সার্চ দেওয়ায় আগ্রহ বেড়েছে হু হু করে।
করোনাভাইরাস মহামারি নিয়ে চর্চা চলছে বছরের শুরু থেকেই। ইন্টারনেটে করোনা নিয়ে খোঁজখবর নেওয়ার প্রবণতা অনেক বেশি। গুগল সার্চ ইঞ্জিনে সার্চ ট্রেন্ডেও চলছে সংক্রামক এ ভাইরাসের আধিপত্য। এর মধ্যে শুধু একজনই পেরেছেন গুগলে সার্চ ট্রেন্ডে করোনাকে দমিয়ে রাখতে। লিওনেল মেসি!

খোলাসা করে বলা যাক। মঙ্গলবার রাতে বুরোফ্যাক্সের মাধ্যমে বার্সেলোনা ছাড়ার সিদ্ধান্ত ক্লাবকে জানান মেসি। এরপরই গুগলে হামলে পড়েন ফুটবলপ্রেমীরা। ‘মেসি ইজ লিভিং’, ‘মেসি নিউজ’, ‘মেসি বার্সা’, ‘সোপ অপেরা মেসি’, ‘হোয়াট হ্যাপেনড টু মেসি’—এসব লিখে গুগলে সার্চ দিয়েছেন তাঁরা। বলা ভালো এখনো দেওয়া হচ্ছে। বার্সা-মেসি সম্ভাব্য বিচ্ছেদের নতুন খবরাখবর জানতেই এভাবে হামলে পড়েছেন ফুটবলপ্রেমীরা।

স্পেনে মেসিকে নিয়ে গুগলে সার্চ দেওয়ার পরিমাণ সবচেয়ে বেশি। স্প্যানিশ সংবাদমাধ্যম ‘এএস’ জানিয়েছে কাল বিকেল (স্থানীয় সময়) পর্যন্ত মেসিকে নিয়ে গুগলে সার্চের হার ছাপিয়ে গেছে করোনা ভাইরাসকে। অর্থাৎ এ ভাইরাস নিয়ে সার্চ দেওয়ার হারকেও ছাপিয়ে গেছে মেসিকে নিয়ে গুগলে মানুষের আগ্রহ। গুগল ট্রেন্ডস টুল থেকে খবরটি জানিয়েছে সংবাদমাধ্যমটি।

বার্সা যেহেতু কাতালান ক্লাব তাই কাতালুনিয়া অঞ্চলে মেসিকে নিয়ে গুগলে সার্চের হার সবচেয়ে বেশি—যা করোনা নিয়ে সার্চ দেওয়ার দ্বিগুণ (৭০%-৩০%)। ভ্যালেন্সিয়া ও গ্যালিসিয়া অঞ্চলে এই হার তুলনামূলক কম। ৫০-৫০ এবং ৪৯-৫১ শতাংশ প্রায়। মাদ্রিদে এই হার বেশি হওয়ার কথা ছিল, যেহেতু বার্সেলোনা রিয়াল মাদ্রিদের চিরপ্রতিদ্বন্দ্বী ক্লাব। আর তাই চিরপ্রতিদ্বন্দ্বী দলের সেরা খেলোয়াড় ক্লাব ছাড়তে চান, এ খবর প্রকাশ হওয়ার পর মাদ্রিদে আগ্রহটা তুঙ্গে থাকার প্রত্যাশাই স্বাভাবিক। ভুল। মেসির তুলনায় করোনা নিয়ে বেশি সার্চ (৫৩%) দিয়েছেন মাদ্রিদের নাগরিকেরা।

বিশ্বব্যাপী সার্চের হিসেবেও কয়েক ঘণ্টার জন্য করোনাকে টেক্কা দিয়েছিলেন মেসি।আফ্রিকান দেশগুলোর মধ্যে নাইজেরিয়া সবচেয়ে এগিয়ে। সেখানে করোনা ও মেসিকে নিয়ে তুলনামূলক সার্চের হারে আর্জেন্টাইন তারকা প্রমাণ ব্যবধানে এগিয়ে। উত্তর আমেরিকায় এই হার মোটেই কম না। তবে দক্ষিণ আমেরিকার পরিসংখ্যান অবাক করবে। করোনার তুলনায় মেসিকে নিয়ে এ মহাদেশে গুগলে সার্চ দেওয়ার হার ৬১ শতাংশ। কিন্তু মেসির দেশ আর্জেন্টিনায় তাঁর বার্সা ছাড়ার সিদ্ধান্ত নিয়ে মানুষের তেমন আগ্রহ নেই। করোনার তুলনায় সেখানে মেসিকে নিয়ে সার্চ দেওয়ার হার মাত্র ৩৯ শতাংশ। আর মেসির রাজ্য সান্তা ফে-তে ৫৭ শতাংশ সার্চ তাঁকে নিয়ে, ৪৩ শতাংশ করোনা নিয়ে। বুরোফ্যাক্স সমন্ধে জানতেও গুগলে সার্চ করেছেন অনেকেই। খবর ওয়েবসাইটের।

এই বিভাগের আরও