ধোঁয়াশা || ✍মোহাম্মদ ফয়সাল || পূর্ব-পশ্চিম

২১-৮-২০২০

This image is not found

           ধোয়াশা

শিক্ষাই জাতির মেরুদণ্ড। ছোটবেলা থেকে এ শিক্ষা গ্রহণ করে আসা ছেলেটাও চাকরি না পেয়ে শিক্ষাকে দোশারোপ করে। দুনিয়া কিছুই না, টাকা পয়সা ধন সম্পদ সবই ধোকা রাতভর এ ওয়াজ করা হুজুরকেও সকালে ৫০০ টাকা কম দিলে টাকা ফেলে যায়।টাকা পয়সা কিছুই না বলা লোকও টাকা উপার্জনের জন্য  বাড়ি থেকে ৭০০০ কি.মি দূরে।দেশের সবচেয়ে বড় আইনী প্রতিষ্ঠানে আইনের আওতায় থাকা লোকেরাই সবচেয়ে বেশি বেআইনী কাজ করে। ১২ বছর প্রেম করা পুরুষ ও তার মেয়ের দেড মাসের প্রেমের গল্প শুনে ঝাডু দিয়ে মারে।যাহা বলিব সত্য বলিব বলা লোকেরাই সবচেয়ে বেশি মিথ্যা বলে। 

রাজনীতির কুফল বলা বাবাও ছেলের চাকরির জন্য রাজনীতিবিদের পায়ে পড়ে। Aim in life  এ সাধারন মানুষের সেবা করতে চাওয়া ডাক্তারও ICU তে মৃত রোগীকে বেচে আছে বলে চার্জ নিতে থাকে।নেতার জন্য জীবন দিতে চাওয়া কর্মীও  স্বার্থের টানে অন্য পাড়ে ভিড়ে।২ কোটি টাকা দিয়ে রাস্তা করে দেওয়া দানবীরও সাড়ে চারশ কোটি টাকার দুর্নীতি মামলায় পড়ে।

সময় সময় জাতির প্রফেসর ও রুপ নেয়  জাতীয় বেইমান এ। মন্ত্রীকে গালাগালি করা ভ্যানচালক ও সুযোগ পেলে ৫টাকার ভাড়া ৫০ টাকা নেয়।মরতে হলে একসাথে মরব বলা প্রিয়াও প্রিয় র আত্নহত্যা পর অন্যকোথাও দিব্যি বেচে থাকে।দিনরাত আলেমদের গালাগালি করা ব্যক্তিও বাবার জানাজার জন্য আলেমের শরনাপন্ন হয়।দুর্নীতি দমন কমিশনের প্রধানের বিরুদ্ধেও দুর্নীতির অভিযোগ উঠে।

সারাক্ষণ মানবিকতার পক্ষে লেখালেখি করা ব্যক্তির প্রতিষ্ঠানেই সবচেয়ে অমানবিক ঘটনা ঘটে। মাদকের বিরুদ্ধে মানববন্ধন করা ব্যক্তিরও মাদক ব্যবসা আছে বলে প্রমাণ মেলে। নাস্তিকেরাও দিন শেষে কবরের বায়না ধরে। চোর বাটপারেরাও নিজের ছেলেকে ভালো মানুষ গড়ার চেষ্টা করে। নারী অধিকার পরিষদের নেতৃত্ব দেওয়া নারীর কাজের মেয়েটি নির্যাতিত হয়।শান্তিতে পুরষ্কার পাওয়া ব্যক্তিও একসময় পৃথিবী ব্যাপি অশান্তি সৃষ্টি করে।

দেখতে দেখতে চোখ ঘোলা হয়ে আসছে।সব অন্ধকার শুন্যে মিলে গিয়ে আলোর মত পরিষ্কার হয়ে যাচ্ছে। আমি লিখছি আর ভাবছি এরপর কি হবে.........................

 

 

 

এই বিভাগের আরও