শক্তিশালী ও নিরাপদ পাসওয়ার্ড তৈরির উপায়

১৮-৮-২০২০

This image is not found
সবুজ আহমেদ , চবি প্রতিনিধি :

 পাসওয়ার্ড একেবারে ব্যক্তিগত একটি তথ্য। যত আপনজন হয়ে থাকুক কারও কাছেই পাসওয়ার্ড জানানো যাবে না। শুধু ওয়েবসাইটের পাসওয়ার্ডই নয়, সতর্ক থাকতে হবে ব্যাংক ও মোবাইল ব্যাংকিং অ্যাকাউন্টের পিনের ব্যাপারেও। নিরাপদ পাসওয়ার্ড তৈরির জন্য নিচের বিষয়গুলো খেয়াল রাখা জরুরি।

বড় পাসওয়ার্ড ব্যবহার: পাসওয়ার্ড ন্যূনতম ১২-১৫ অক্ষরের ব্যবহার করা উচিত। অনেক ক্ষেত্রে ‘brute force attack’ নামের একটি পদ্ধতিতে কম্পিউটার প্রোগামের মাধ্যমে সব ধরনের পাসওয়ার্ড অনুমান করার চেষ্টা করা হয়। সংক্ষিপ্ত পাসওয়ার্ডের তুলনায় বড় আকারের পাসওয়ার্ড অনুমান করা কঠিন।

অর্থপূর্ণ নয় এমন পাসওয়ার্ড ব্যবহার: বড় পাসওয়ার্ড ব্যবহার করা হলেই সম্পূর্ণ নিরাপদ, এমন নয়। বরং পাসওয়ার্ড হতে হবে অর্থপূর্ণ নয়, এমন কোনো শব্দ।

নম্বর, চিহ্ন ও বিভিন্ন অক্ষর মিলিয়ে রাখা: পাসওয়ার্ডে শুধু a-z অক্ষরগুলো ব্যবহার না করে, সংখ্যা ও চিহ্ন মিলিয়ে তৈরি করতে হবে।

ব্যক্তিগত তথ্য ব্যবহার না করা: নিজের মোবাইল নম্বর, বাসার ঠিকানা, জন্মতারিখ, শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের নাম বা পোষা প্রাণীর নাম ব্যবহার করা যাবে না। শুরু নিজেরই নয় আত্মীয়, প্রিয়জন বা পরিবারের কারও এই তথ্যগুলো দিয়েও পাসওয়ার্ড ব্যবহার করা উচিত নয়।

একই পাসওয়ার্ড বিভিন্ন সাইটে ব্যবহার না করা: একটি পাসওয়ার্ড শুধু একটি সাইটে ব্যবহার করা উচিত। এবং প্রতিটি অ্যাকাউন্টের পাসওয়ার্ডই নিরাপদ হতে হবে এবং কখনোই কোনো অ্যাকাউন্টে সহজে অনুমান করা যায় এমন কিছু ব্যবহার করা যাবে না।

মাঝেমধ্যে পাসওয়ার্ড পরিবর্তন করা: কঠিন কোনো পাসওয়ার্ড ব্যবহার করা হলেও কিছুদিন পরপর সেটি পরিবর্তন করে নতুন কোনো পাসওয়ার্ড নির্ধারণ করা প্রয়োজন। বিশেষত ব্যাংক অ্যাকাউন্ট এবং
অর্থ আদান–প্রদানের অ্যাকাউন্টগুলোর ক্ষেত্রে এই নিয়ম মেনে চলা উচিত।

লগআউট করা: ব্যক্তিগত কম্পিউটার ছাড়া অপর কোনো স্থান যেমন অফিস, বিশ্ববিদ্যালয়ের ল্যাব থেকে কোনো অ্যাকাউন্টে লগইন করা হলে অবশ্যই খেয়াল করে লগআউট করতে হবে। লগইন করা অবস্থায় চলে গেলে অপর কেউ অ্যাকাউন্টে প্রবেশ করে পাসওয়ার্ড পরিবর্তন করাসহ আরও নানা রকম ক্ষতি করতে পারে।